বৃহস্পতিবার , সেপ্টেম্বর ২৪ ২০২০
Home / নিউজ / খাস জমির অধিকার ভূমিহীন জনতার এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আজ কুড়িগ্রাম জেলা রাজারহাট উপজেলা ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়ন ৯ নং ওয়ার্ড চতলার বিল। জমির পরিমাণ ১৫ একর ৭০ শতাংশ যাহা কিছু দিন ধরে ভূমিদস্যুরা মুস্টিমেয় কতিপয় ভূমিদস্যু জবরদখল করে খাচ্ছে। গত কয়েকদিন আগে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি এবং স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ভূমিদস্যুরা সমঝোতা করে যে, তারা বিল ভূমিহীন ও সাধারণ জনগণের মাঝে ফিরিয়ে দিবে। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তারা তা না করে ঐ বিল পাড় বেঁধে পুকুর তৈরি করে মাছ চাষ শুরু করে। এতে ঐ এলাকার ভূমিহীন ও সাধারণত জনগণ ঐ বিলে নামতে পারে না। ভূমিদস্যুরা বিলের আকার নিচ্ছিন্ন করে জবরদখল করে খাচ্ছে। ভূমিদস্যুরা সরকারি জমি অবৈধভাবে হস্তক্ষেপ করে রেখেছে। তাই উক্ত ইউনিয়নের ভূমিহীন ও সাধারণত জনগণ বুঝতে পেরে পাড় কেটে বিলে পরিনত করে। তারপর ঐ বিলে মাছের পোনা ছাড়ে। এতে করে অসহায় ভূমিহীন পরিবার ও সাধারণ জনগণ এবং সরকারের স্বার্থ সংরক্ষিত হবে।কুড়িগ্রাম জেলার জিএন বাংলা টিভির সাংবাদিক এস কে মিন্টু/

খাস জমির অধিকার ভূমিহীন জনতার এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আজ কুড়িগ্রাম জেলা রাজারহাট উপজেলা ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়ন ৯ নং ওয়ার্ড চতলার বিল। জমির পরিমাণ ১৫ একর ৭০ শতাংশ যাহা কিছু দিন ধরে ভূমিদস্যুরা মুস্টিমেয় কতিপয় ভূমিদস্যু জবরদখল করে খাচ্ছে। গত কয়েকদিন আগে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি এবং স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ভূমিদস্যুরা সমঝোতা করে যে, তারা বিল ভূমিহীন ও সাধারণ জনগণের মাঝে ফিরিয়ে দিবে। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তারা তা না করে ঐ বিল পাড় বেঁধে পুকুর তৈরি করে মাছ চাষ শুরু করে। এতে ঐ এলাকার ভূমিহীন ও সাধারণত জনগণ ঐ বিলে নামতে পারে না। ভূমিদস্যুরা বিলের আকার নিচ্ছিন্ন করে জবরদখল করে খাচ্ছে। ভূমিদস্যুরা সরকারি জমি অবৈধভাবে হস্তক্ষেপ করে রেখেছে। তাই উক্ত ইউনিয়নের ভূমিহীন ও সাধারণত জনগণ বুঝতে পেরে পাড় কেটে বিলে পরিনত করে। তারপর ঐ বিলে মাছের পোনা ছাড়ে। এতে করে অসহায় ভূমিহীন পরিবার ও সাধারণ জনগণ এবং সরকারের স্বার্থ সংরক্ষিত হবে।কুড়িগ্রাম জেলার জিএন বাংলা টিভির সাংবাদিক এস কে মিন্টু/

About নিজস্ব প্রতিবেদক

Check Also

আজকের প্রথম আলো I সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০খবর।জিএনবাংলা টিভি চ্যানেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *